রবিবার, ০৯ মে ,২০২১

Bangla Version
  
SHARE

রবিবার, ০২ মে, ২০২১, ০৯:২৯:২৪

গরমে যা খাবেন

গরমে যা খাবেন

স্বাস্থ্য ডেস্ক : গরমে চাই তেতো। গ্রীষ্মের অন্যান্য সবজির সঙ্গে তোতো সবজি খান। সেটা করলা বা উচ্ছে হতে পারে। খেতে পারেন হেলঞ্চা শাক ও সজিনা। এতে আছে প্রচুর ভিটামিন 'সি' এবং ভিটমিন 'এ'। গরমে পাকস্থলীতে পানির চাহিদাও বাড়ে। এ সময় পাকস্থলীর কর্মক্ষমতা কিছুটা হ্রাস পায়। তাই তোতো সবজির প্রাকৃতিক অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং পাকস্থলীর ক্ষতিকর জীবাণু ধ্বংস করতে সাহায্য করে।

করলার তোতো খাদ্য পরিপাক ক্রিয়াকে সহজ করে দেয়, যা বদহজম এবং কোষ্ঠকাঠিন্যের মতো সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে। এ ছাড়া খনিজ লবণ এবং মিনারেলের ভালো উৎস করলা। এতে আছে ভিটামিন 'বি' কমপ্লেক্স, আয়রন, জিংক, পটাশিয়াম, ম্যাংগানিজ ও ম্যাগনেশিয়াম। ঘামের কারণে শরীর থেকে বেরিয়ে যাওয়া খনিজের অভাব এতে কিছুটা পূরণ হতে পারে।

সবজি আর ফল

সকালের কিংবা বিকেলের নাশতায় দই, চিঁড়া, দুধ-মুড়ি, স্যুপ, সেমাই, ফালুদা খেতে পারেন। রাতেও দুপুরের মতো মেন্যু থাকবে, তবে পরিমাণে কিছু কম খান। বাঁধাকপি, ঢেঁড়শ, কুমড়া, লাউয়ের মতো সবজিতে পানির পরিমাণ বেশি। প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় তাই এসব সবজি রাখুন।

তিন বেলার খাবারেই সবজি রাখুন। কয়েকটি মৌসুমি সবজি দিয়ে মিক্সড সবজি রান্না করুন। মুরগির মাংসের ঝোল সহজপাচ্য। গরমের দিনে ছোট মাছের একটি পদ প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় রাখতে পারেন। সব ধরনের রান্নায় তেল ও মসলা খুব কম ব্যবহার করুন।

গরমে সালাদ একটি উপাদেয় খাবার। অন্তত দুই বেলা দুই বাটি সালাদ খাওয়ার অভ্যাস করুন। দই, শসা, টমেটো, গাজর, কাঁচা পেঁপে, কাঁচা মরিচ, ধনেপাতা, পুদিনাপাতা মিশিয়ে সালাদ তৈরি করুন। চাইলে বিভিন্ন মৌসুমি ফল দিয়ে ফ্রুট সালাদও খেতে পারেন। তবে ফ্রুট সালাদ মূল খাবারের সঙ্গে না খেয়ে দুটি ভারী খাবারের মধ্যে নাশতা হিসেবে খান। ফলের সালাদে পেপটিন নামক পদার্থ থাকে, যা হজমে সহায়তা করে।

বাচ্চাকে বাইরের কেনা খাবার, চকোলেট, চিপস বা কোল্ড ড্রিংকস থেকে বিরত রাখুন। চকোলেট আর্টিফিশিয়াল সুগার ও চিপসে টেস্টিং সল্ট থাকায় ক্ষুধামন্দা ভাব তৈরি হয়। আবার ফাস্ট ফুড, বিশেষ করে ফ্রাইড চিকেনে অতি মাত্রায় টেস্টিং সল্ট ও আটা ব্যবহার করা হয়। আর এই আটাতে আছে গ্লুটিন নামক পদার্থ, যা বাচ্চাদের স্নায়ু চঞ্চল করে ও ক্ষুধামন্দা ভাব তৈরি করে।

বিদেশি ফলের চেয়ে দেশি ফল, বিশেষ করে টকজাতীয় ফল খেতে দিন। ফলের জুস না ছেঁকে খেতে দিন। পারলে আস্ত ফল খেতে দিন।

বাচ্চাদের খাদ্যতালিকায় প্রোটিনের জোগান হিসেবে যে শুধু মাছ-মাংস খাওয়াতে হবে, এটা ঠিক নয়। মাছ-মাংসের বিকল্প হিসেবে আমন্ড বাদাম ও কাজু বাদাম দিতে পারেন। তবে চিনা বাদাম না দেওয়াই ভালো। এটা গরমের সময় আরো ক্ষুধামন্দা ভাব তৈরি করে।

আজকের প্রশ্ন

পুরো ঢাকায় ‘অঘোষিত কারফিউ’ চলছে। সরকার জনগণকে জিম্মি করে জনগণকে বাদ দিয়ে বিদেশি অতিথিদের নিয়ে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনে ব্যস্ত। ফখরুলের এক মন্তব্যের সঙ্গে আপনি কি একমত?