সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ,২০২০

Bangla Version
  
SHARE

শুক্রবার, ১৪ আগস্ট, ২০২০, ০৯:৪০:৪১

ইসরায়েলের সঙ্গে চুক্তি করে ফিলিস্তিনিদের পিঠে ছুরি মারল আমিরাত

ইসরায়েলের সঙ্গে চুক্তি করে ফিলিস্তিনিদের পিঠে ছুরি মারল আমিরাত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মধ্যপ্রাচ্যের দখলদার ইহুদিবাদী রাষ্ট্র ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে মুসলিম রাষ্ট্র সংযুক্ত আরব আমিরাতের স্বাক্ষরিত চুক্তির নিন্দা জানিয়েছে ফিলিস্তিনের গাজা নিয়ন্ত্রণকারী সশস্ত্র সংগঠন হামাস। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প চুক্তি স্বাক্ষরের ঘোষণা দেওয়ায় হামাসের পক্ষ থেকে এই চুক্তিকে ফিলিস্তিনিদের পিঠে ছুরিকাঘাত বলে উল্লেখ করা হয়।

তুরস্কের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা আনাদোলু এজেন্সি জানিয়েছে, ১৯৪৮ সালে ইসরায়েলের স্বাধীনতার ঘোষণার পর ইসরায়েল ও আরবের মধ্যে এটি তৃতীয় চুক্তি। এর আগে মিশর ১৯৭৯ সালে ও জর্ডান ১৯৯৪ সালে চুক্তি স্বাক্ষর করেছিল।

এখন পর্যন্ত উপসাগরীয় কোনো আরব দেশের সঙ্গে ইসরায়েলের কূটনৈতিক সম্পর্ক নেই। যদিও ইরানের আঞ্চলিক প্রভাব মোকাবিলায় ইসরায়েলের সঙ্গে এসব দেশের অনানুষ্ঠানিক যোগাযোগ রয়েছে।

হামাসের পক্ষ থেকে বলা হয়, এই চুক্তি ফিলিস্তিনিদের কোনো স্বার্থের অনুকূলে নয়। এতে ফিলিস্তিনি জনগণের অধিকারকে অগ্রাহ্য করা হয়েছে।

বিবৃতির মাধ্যমে সংগঠনটি বলেছে, ইসরায়েলের সঙ্গে এই চুক্তি ফিলিস্তিনি জনগণের পিঠে ষড়যন্ত্রমূলক ছুরিকাঘাত।

এ দিকে আরও একটি ফিলিস্তিনি সংগঠন পপুলার রেসিস্ট্যান্স কমিটি চুক্তিটিকে ফিলিস্তিনিদের বিরুদ্ধে বড় ধরনের ষড়যন্ত্র বলে আখ্যায়িত করেছে। এমনকি ইসলামিক জিহাদ মুভমেন্টের পক্ষ থেকেও নতুন চুক্তিকে আত্মসমর্পণের সঙ্গে তুলনা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ঘোষণা দেন, ইসরায়েল ও সংযুক্ত আরব আমিরাত সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে সমঝোতায় পৌঁছেছে। এই লক্ষ্যে একটি চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে।

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু, আবুধাবির যুবরাজ মোহাম্মদ বিন জায়েদ ও ট্রাম্প চুক্তি স্বাক্ষর ইস্যুতে যৌথ বিবৃতি দিয়েছেন। সেখানে বলা হয়, তাদের আশা এই বিরাট ঐতিহাসিক পদক্ষেপ মধ্যপ্রাচ্যে শান্তির অগ্রগতিকে এগিয়ে নেবে।

আজকের প্রশ্ন

বিএনপির নেতারা আইন না বুঝেই মন্তব্য করে আইনমন্ত্রীর এমন বক্তব্যে আপনি কি একমত?