সোমবার, ২৩ নভেম্বর ,২০২০

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ১৯ অক্টোবর, ২০২০, ১১:৩৩:৫২

আর্মেনিয়ার আরেকটি যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করল আজারবাইজান

আর্মেনিয়ার আরেকটি যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করল আজারবাইজান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : আর্মেনিয়ার আরেকটি এসইউ-২৫ যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করেছে আজারবাইজান। দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, রবিবার আজেরি ভূখণ্ডে হামলার প্রাক্কালে গুলি করে যুদ্ধবিমানটি ভূপাতিত করা হয়।

আগের দিন শনিবারও আর্মেনিয়ার একটি এসইউ-২৫ যুদ্ধবিমান গুলি করে ভূপাতিত করার কথা জানায় আজারবাইজান।

রবিবার আজেরি প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, স্থানীয় সময় রবিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে আর্মেনীয় বিমানটি জাবরাঈল এলাকায় আজেরি ভূখণ্ডে বিমান হামলা চালানোর চেষ্টা করছিল। এ সময় সেটি গুলি করে ভূপাতিত করা হয়। আগের দিন শনিবারও একই ধরনের পরিস্থিতিতে আরেকটি আর্মেনীয় এসইউ-২৫ যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করা হয়।

নাগরনো-কারাবাখ অঞ্চল নিয়ে আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের পুরনো সংঘাত গত ২৭ সেপ্টেম্বর থেকে নতুন করে আবার শুরু হয়। গত কয়েক দিনের সংঘাতে ৩ শতাধিক মানুষের প্রাণহানি হয়েছে। এই সংঘাতে নিজ দেশের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির কথা স্বীকার করেছে আর্মেনিয়া। টেলিভিশনে সম্প্রচারিত এক ভাষণে এ বাস্তবতা স্বীকার করেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নিকোল পাশিনিয়ান। তিনি বলেন, আর্মেনিয়ার ‘বহু হতাহত’ হয়েছে। তবে এখনো সেনাবাহিনী কারাবাখের নিয়ন্ত্রণ ধরে রাখতে সমর্থ হয়েছে।

নিকোল পাশিনিয়ান বলেন, ‘আমাদের সবার জানা প্রয়োজন যে আমরা একটা কঠিন পরিস্থিতি পার করছি। জনশক্তি ও উপকরণের ক্ষয়ক্ষতি হলেও আর্মেনিয়ার সেনারা এখনও নিয়ন্ত্রণ ধরে রেখেছে। তারা প্রতিপক্ষের জনশক্তি ও উপকরণের বিপুল ক্ষয়ক্ষতি করেছে।’

আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ বলেছেন, আর্মেনিয়া তাদের গ্যাস ও তেলের পাইপ লাইনে আক্রমণ করেছে। তুরস্কের প্রচার মাধ্যম হেবারতুর্ক-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘আর্মেনিয়া আমাদের পাইপলাইন আক্রমণ করে সেগুলোর নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার চেষ্টা করছে। তারা যদি এ প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখে, তাহলে এর পরিণতি হবে ভয়াবহ।’

অন্যদিকে সংবাদমাধ্যম রয়টার্সের সঙ্গে আলাপকালে আজারবাইজানের সঙ্গে তার দেশের চলমান সংঘাতের জন্য তুরস্ককে দায়ী করেন আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী। রয়টার্সকে তিনি বলেন, তার বিশ্বাস তুরস্ক অবস্থান বদলালেই আজারবাইজান কারাবাখে সামরিক পদক্ষেপ স্থগিত করবে।

নিকোল পাশিনিয়ান বলেন, যতক্ষণ পর্যন্ত তুরস্কের অবস্থান পরিবর্তন না হয়, ততক্ষণ পর্যন্ত আজারবাইজান থামবে না। তারা সংঘাত থামাবে না।

সাবেক সোভিয়েত দেশগুলোর সামরিক জোটের সদস্য আর্মেনিয়া, যার নেতৃত্বে রয়েছে রাশিয়া। আবার আজারবাইজানের ঘনিষ্ঠ মিত্র তুরস্ক। তুর্কি ও আজেরি রাজনীতিকরা দুই দেশের সম্পর্ককে ব্যাখ্যা করতে একটি বাক্য ব্যবহার করে থাকেন।
খবর আল- জাজিরা

এই বিভাগের আরও খবর

  নাইজেরিয়ায় নামাজরত অবস্থায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত ৫

  ‘চীনকে ভয় দেখাতে’ সাগরে ভারত-যুক্তরাষ্ট্র-জাপান-অস্ট্রেলিয়ার মহড়া

  গোপনে সৌদ গিয়েছিলেন নেতানিয়াহু, বৈঠক করেছেন যুবরাজের সঙ্গে

  দরিদ্র দেশে করোনার ভ্যাকসিন পাওয়া নিয়ে উদ্বেগ মেরকেলের

  ডিসেম্বরেই টিকা দিবে ব্রিটেন, জার্মানি ও যুক্তরাষ্ট্র

  সু চির দলের এমপিকে গুলি করে হত্যা

  বিশ্বব্যাপী করোনা থেকে সুস্থ ৪ কোটি ৭ লাখ

  সীমান্তে চীনের নতুন তৎপরতা, ভারতে ব্যাপক উত্তেজনা

  থাইল্যান্ডের সেই রাজাকে বহিষ্কারের হুমকি জার্মানির

  দুই দশকের সর্বনিম্ন তাপমাত্রায় বিপর্যস্ত দিল্লি

  করোনার তৃতীয় ঢেউ আসতে পারে ডব্লিউিএইচও’র সতর্কতা

আজকের প্রশ্ন

বিএনপির নেতারা আইন না বুঝেই মন্তব্য করে আইনমন্ত্রীর এমন বক্তব্যে আপনি কি একমত?