বুধবার, ২০ জানুয়ারী ,২০২১

Bangla Version
  
SHARE

বুধবার, ১৩ জানুয়ারী, ২০২১, ০৩:১৬:২২

বাজপাখী আর ঈগলের মত প্রধানমন্ত্রীর প্রতিহিংসার পাখা ছটপট করে: রিজভী

বাজপাখী আর ঈগলের মত প্রধানমন্ত্রীর প্রতিহিংসার পাখা ছটপট করে: রিজভী

ঢাকা : বাজপাখী আর ঈগলের মত প্রধানমন্ত্রীর প্রতিহিংসার পাখা ছটপট ছটপট করে সবসময়। এত গুম, খুন আর মিথ্যা মামলার পরও বিএনপির নেতারা পিঁপড়ার গর্ত থেকে যেমন লাখে লাখে বের হয়, বিএনপির নেতাকর্মীরাও কিভাবে গর্তের ভিতর থেকে কি করে লাখে লাখে বের হয় বলে প্রধানমন্ত্রীর এত হিংসা বলে উল্লেখ করেন বিএনপির সিনিয়র যুুগ্ম মহাসচিব রুহুুল কবির রিজভী।

বুধবার (১৩ ডিসেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ঢাকা মহানগর বিএনপির উদ্যোগে দলটির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে এক বিশাল মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর এত প্রতিহিংসা কেন? জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে , স্বাধীনতার ঘোষক জিয়াউর রহমানের বিরুদ্ধে, গনতন্ত্র উদ্ধারকারী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে এবং ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারক রহমানের বিরুদ্ধে। এদের প্রতিহিংসা তো থামবে না।

মামলা গলার মালা উল্লেখ করে তিনি বলেন, কবি নজরুল ইসলাম বলেছেন আল্লাহ আমার মাথার মুকুট আর রাসুল গলার হার। আমি বলতে চাই আওয়ামী লীগের আমলে বিএনপির নেতাকর্মীদের মাথার মুকুট হলো গুম আর গলার মালা হলো মামলা।

তিনি বলেন, আপনারা জানেন কত বড় মিথ্যা কথা এই হাসিনা আর তার আন্দোলনের ফসল মইনউদ্দিন সেনাবাহীর প্রধান প্রেস কনফারেন্স করে বলেন, তারেক রহমান হাওয়া ভবন আর বিদ্যুত খাত থেকে বিশ হাজার কোটি টাকা নিয়ে গেছে।পরে জানা গেলো ৫ বছরে বাজেটই ছিলো ১২ হাজার কোটি টাকা। একটা গুরুত্বপূর্ণ পদে সেনাবাহিনীর প্রধান এত বড় মিথ্যা কথা বললেন! কারণ উনিতো আওয়ামী লীগ আর হাসিনার চেতনায় রঞ্জিত ছিলেন। এই হাসিনার বাবার আমলে একজন সাংবাদিক বলেছিলেন, সত্য বাবা মারা গেছেন। হাসিনার আমলেতো সত্য থাকতে পারে না। সত্য থাকে গোরস্থানে। আজকে মিথ্যার চাষ-বাস হচ্ছে।

তানা হলে শেখ হাসিনা বিএনপি ক্ষমতায় আপনি বলেন নি? তারেক রহমানের মালয়েশিয়ায় কারখানা আছে, মিল ফ্যাক্টরি আছে! আপনি তো আজ ১২ বছর ক্ষমতায় আছেন। সেই কারখানা আর মিল ফ্যাক্টরি কই? আপনি তো একটারও ছবি দেখাতে পারলেন না। এই মিথ্য কথাগুলো আপনারা বলেছেন। কিন্তু আজকে জনগণ জানে এমনকি আপনার মন্ত্রীরাও বলছে, মালয়েশিয়ায় যারা ক্যাসিনো করেছে, যারা রাজকোষের টাকা লুটপাট করেছে, যারা টেন্ডারবাজী করেছে তারাই সেকেন্ড হোম বানিয়েছে। তারা কারা? তারা আওয়ামী লীগের নেতা, আওয়ামীলীগের মন্ত্রী, তারা শেখ হাসিনার চারপাশে যারা আছেন তারাই।

শেখ হাসিনার আমরে সত্যিকারের একটি রিপোর্ট জয়ের বিরুদ্ধে। একজন বর্ষিয়ান সাংবাদিক শফিক রেহমান। যে রিপোর্টের জন্য তাকে জেল খাটতে হয়েছে। তাকে রিমান্ডের নামে নির্যাতন সহ্য করতে হয়েছে। অথচ বিএনপি ক্ষমতায়, বিএনপি কত গণতান্ত্রীক, বিএনপি কত সহশীল। শেখ হাসিনা বলেছেন তারেক রহমানের বিরুদ্ধে। তারপরেও শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে বিএনপি মামলা করেননি। আজকে ১২ বছর জোর করে ক্ষমতায় থেকেও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে যে মিথ্যা কথা বলেছেন তা প্রমাণ করতে পারেন নি। আর এটাই হলো আলোকের মত উদ্ভাসিত তারেক রহমান। দিনের আলোর ন্যায় তারেক রহমানের সততা সত্য। শেখ হাসিনা মিথ্যাবাদী, তার প্রচার সম্পূর্ণ অপপ্রচার।

তিনি আরো বলেন, কেন, জিয়াউর রহমানের বিরুদ্ধে হিংসা? কেন, বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে কুৎসা? কেন তারেক রহমানের বিরুদ্ধে এত মামলা? তিনি তো লন্ডনে আছেন! তারপরেও কেন এত হিংসা। এই তিন জন কে? জিয়া উর রহমান, খালেদা জিয়া আর তারেক রহমান । এরা জাতীয়তাবাদের প্রতীক। জাতীয়তাবাদ মানেই হলো যারা তার মাটি, সমুদ্র , পতাকা নিয়ে অহংকার করে সেটাই সহজভাবে জাতীয়তাবাদ।

বিএনপর যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি হাবিব-উন-নবী খান সোহেল এর সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমানউল্লাহ আমান, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, নির্বাহী কমিটির সদস্য নাজিম উদ্দিন আলম, স্বেচ্ছাসেবকবিষয়ক সম্পাদক মীর সরাফৎ আলী সপু, সহ-প্রচার সম্পাদক কৃষিবিদ শামিমুর রহমান শামিম, যুবদলের সভাপতি সাইফুল আলম নীরব, সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, সিনিয়র সহ-সভাপতি মোর্তাজুল করিম বাদরু, স্বেচ্ছাসেবকদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভূইয়া জুয়েল, সিনিয়র সহ-সভাপতি গোলাম সারোয়ার, কৃষকদলের সদস্যসচিব কৃষিবিদ হাসান জাফির তুহিন, ছাত্রদল সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন, সিনিয়র সহ-সভাপতি কাজী রওনুকুল ইসলাম শ্রাবণ ও সাধারণ সস্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল প্রমুখ বক্তব্য দেন।

মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির সহ-যুববিষয়ক সম্পাদক মীর নেওয়াজ আলী নেওয়াজ, মৎস্যজীবী দলের সদস্যসচিব আব্দুর রহিম, ঢাকা জেলা বিএনপির সভাপতি ডা: দেওয়ান সালাউদ্দীন বাবু, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আবু আশফাক, কৃষকদলের কেন্দ্রীয় আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মাইনুল ইসলাম, কৃষিবিদ মেহেদী হাসান পলাশ, ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আমিনুর রহমান আমিন, সাংগঠনিক সাইফ মাহমুদ জয়েল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের আহ্বায়ক রাকিবুল ইসলাম রাকিব ও যুগ্ম-আহ্বায়ক মোস্তাফিজুর রহমান প্রমুখ।

এই বিভাগের আরও খবর

  বিএনপি সবকিছুতেই লুটপাট দেখে : তথ্যমন্ত্রী

  পৌর নির্বাচনে নৌকার বিপক্ষে গেলেই কঠোর ব্যবস্থা: কাদের

  ভিআইপিরা আগে গরিবদের উপর ভ্যাকসিন প্রয়োগ করে দেখবেন তারা বাঁচে না মরে: রিজভী

  রাজধানীর তিনটি স্থানে শীতবস্ত্র বিতরণ করলো জেডআরএফ

  ৫ম ধাপের পৌরসভা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা

  দলীয় শৃঙ্খলা না মানলে বিদ্রোহী প্রার্থীদের খারাপ পরিণতি ভোগ করতে হবে: কাদের

  ভিন্ন মতের লোকেরা ভ্যাকসিন পাবে কি-না, যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে : রিজভী

  এই সরকার করোনা নিয়ন্ত্রণ করতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে: ফখরুল

  পাগলামি করলে এমন গণধোলাই খাবেন চেহারা চেনা যাবে না: কাদের মির্জাকে নিক্সন চৌধুরী

  শীতার্ত মানুষের পাশে নেই আ.লীগ: রিজভী

  কাউন্সিলরের মৃত্যুর সঙ্গে জড়িতরা ছাড় পাবেন না : কাদের

আজকের প্রশ্ন

বিএনপির নেতারা আইন না বুঝেই মন্তব্য করে আইনমন্ত্রীর এমন বক্তব্যে আপনি কি একমত?